শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:০১ পূর্বাহ্ন

দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ; বিচারের আশ্বাসে মামলা হয়নি ১৫ দিনেও

দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণ; বিচারের আশ্বাসে মামলা হয়নি ১৫ দিনেও

0 Shares

স্টাফ রিপোর্টার:
পিরোজপুরের নাজিরপুরে দ্বিতীয় শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী (৭) ধর্ষনের বিচারের আশ্বাস দিয়ে ১৫ দিনেও মামলা করতে পারেন নি ধর্ষিতার পিতা। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার দীর্ঘা ইউনিয়নের ঝিলবুনিয়া গ্রামে। ধর্ষক টুলু মন্ডল (১৭)একই গ্রামের পংকজ মন্ডলের ছেলে। ধর্ষিতা ওই স্কুল ছাত্রী উপজেলার চাঁদকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী।
ধর্ষিতার পিতা জানান, গত ৫ আগষ্ট সন্ধ্যায় তার দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়–য়া কন্যা স্থাণীয় চাঁদকাঠী বাজারের এক প্রাইভেট শিক্ষিকার কাছ থেকে প্রাইভেট পড়ে বাসায় ফিরছিলো। এ সময় ধর্ষক টুলু মন্ডল তাকে অনুসরন করে । ওই স্কুল ছাত্রী চাঁকাঠী বাজার সংলগ্ন ব্রীজের কাছের মোকসেদ মাস্টারে ভাড়া দেয়া টিনসেট ভবনের কাছে আসলে ধর্ষক তাকে মুখচেপে ধরে ওই ঘরের বাথরুমে নিয়ে যায়। এ সময় ওই ঘরের ভাড়াটিয়া নির্মল স্বর্নকার বাসায় ছিলেন না। এ সময় ধর্ষক ওই ছাত্রীকে ব্যাগ রেখে প্যান্ড খুলতে বললে সে চিৎকার করে। এতে সে রাজী না হলে তাকে মেরে ও তার মুখ চেপে ধরে ধর্ষন করে। এতে সে রক্তাক্ত হলে পরের দিন সকালে তাকে চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। সেখান থেকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে পাঠালেও এ ঘটনা ধামা চাপা দিতে স্থাণীয় স্থাণীয় সুনিল বেপারী, রব বাড়ৈ, লিটন মেম্বার বিষয়টি মামলা না করে মিমাংসা করে দেয়ার জন্য চাপ দিয়ে সেখানে যেতে দেয় নি। কিন্তু পরে গত বুধবার তারা ওই ছাত্রীর বাবকে ৩ হাজার টাকা নিয়ে মিমাংশা যাওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। এ বিষয়ে স্থাণীয় জানতে স্থাণীয় ইউপি সদস্য লিটন বিশ্বাসকে ফোন দিলে তিনি এমন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তাকে (ধর্ষিতার পিতা) শুরু থেকেই তাকে আইনের আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে।
স্থাণীয় ইউপি চেয়ারম্যান আশুতোষ বেপারী বলেন, ওই ঘটনায় স্থাণীয়ভাবে একবার বিষয়টি মিমাংসা করে দেয়া হয়েছে।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
Design By MrHostBD
বাংলা English
Copy link
Powered by Social Snap