বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:০৯ অপরাহ্ন

নাজিরপুরে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সংঘর্ষ- ভাঙচুর, গুলিবিনিময় আহত-১৫

নাজিরপুরে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সংঘর্ষ- ভাঙচুর, গুলিবিনিময় আহত-১৫

0 Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক:
পিরোজপুরের নাজিরপুরে আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে গুলি বিনিময়, হামলা ভাঙচুর ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মো. রশিদ শেখ (৪২) নামের এক যুবলীগ নেতাসহ উভয় গ্রুপের ১৫ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। গুরুতর আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার শেষ বিকেলে সরকারি মহিলা কলেজ মাঠে এ ঘটনা ঘটে। এসময় মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম গ্রুপ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম এ আউয়াল গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

হামলায় মন্ত্রী গ্রুপের উপজেলার মাটিভাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রশিদ শেখ (৪২), জুয়েল শেখ (১৮), মেজবাহ হাওলাদার (৩০), সোহাগ মৃধা (৪০), আখতারুজ্জামান শিকদার (৫৫), সুবোধ মিস্ত্রী (৪২), এনামুল শেখ টুকু (২৬), জাকারিয়া বেপারী (৩০) ও উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মো. তরিকুল ইসলাম তাপস (৩৫), নাজিরপুর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার হালদার (৫৫) এবং আউয়াল গ্রুপের শাওন (৩০), জাকির হোসেনসহ (২৮) ১৫ অন্তত জন আহত হয়েছেন। গুলিতে আহত রশিদ শেখকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. কৌশিক সাহা জানান, আহত ৯ জনকে চিকিৎসা দিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহত রশিদের মাথার ডানপাশে আহত আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন। তবে তা গুলি কি না তা এখানো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

হামলায় আহত প্রত্যক্ষদর্শী উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক তরিকুল ইসলাম চৌধুরী তাপস জানান, সন্ধ্যার কিছু আগে কেন্দ্রীয় নেতারা কমিটি গঠনের জন্য বঙ্গমাতা কলেজের দোতালার একটি কক্ষে বসে সিদ্ধান্ত নিচ্ছিলেন। এসময় আমরা ওই ভবনের নিচে দাঁড়িয়ে স্লোগান দিচ্ছিলাম। এসময় পিরোজপুর থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ অন্যদের সাথে আসা ক্যাডার বাহিনীর এক যুবক তার সঙ্গে থাকা পিস্তল দিয়ে গুলি ছোড়ে। ওই গুলিতে যুবলীগ নেতা রশিদ আহত হন। একই বক্তব্য আহত রশিদেরও।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় নাজিরপুর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে থাকা কমপক্ষে ১০টি মাইক্রো বাস ভাঙচুরসহ প্রতিপক্ষের ব্যানার ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলা হয়।

নাজিরপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানান, আমি কাউকে গুলি করতে দেখিনি। তবে গুলি করা হয়েছে বলে কয়েকজন চিৎকার করে দৌঁড় দেয়। পরে হামলা ও সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছে বলে শুনেছি। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে।

এ দিকে সম্মেলনে মোশারেফ হোসেন খানকে সভাপতি ও আশুতোষ বেপারীকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
Design By MrHostBD
বাংলা English
Copy link
Powered by Social Snap