সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৯:২১ পূর্বাহ্ন

সাবেক বিএনপি নেতার ফেসবুক ওয়ালে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের বুলি

সাবেক বিএনপি নেতার ফেসবুক ওয়ালে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নের বুলি

0 Shares

স্টাফ রিপোর্টার:
পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক এক নেতার ফেসবুক ওয়ালে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বর্তমান শেখ হাসিনা সরকারের দেশ পরিচালনায় সফলতা দেখিয়ে ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। বঙ্গবন্ধু-শেখ হাসিনা সহ আ.লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন নেতার ব্যানার ও ছবি পোষ্ট করেছেন তার ফেসবুক আইডিতেও। এছাড়া সম্প্রতি ¯স্থানীয় জেলা ও উপজেলা আ.লীগ নেতাদের ছবি ব্যবহার করে প্রত্র পত্রিকায় সুভেচ্ছা বিজ্ঞাপনও দিয়েছেন তিনি। এমনকি জেলা শহর থেকে শুরু করে তার নিজ এলাকার বিভিন্ন দৃশ্যমান জায়গায় আ.লীগ নেতাদের ছবি সম্বলিত ব্যানারও সেঁটে দিয়েছেন তিনি। এ বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি তার পোষ্ট করা ঐ স্ট্যাটাস নিয়ে নানান প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেছেন। ঐ বিএনপি নেতার নাম এম এ কাইউম জোমাদ্দার। উপজেলার কলারন এলাকার বাসিন্দা তিনি। তিনি ইন্দুরকানী উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বরিশাল কমার্স কলেজের এজিএস এবং কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সক্রিয় নেতা। বিএনপির বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে তিনি এলাকায় এর আগে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করেছেন। এছাড়া বর্তমানে তিনি ইন্দুরকানী উপজেলার চন্ডিপুর কেসি টেকনিক্যাল এ্যান্ড বিসনেজ ম্যানেজমেন্ট কলেজের একজন সহকারী অধ্যাপক। তবে ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক পদ থেকে তিনি বর্তমানে অব্যাহতি নিয়েছেন বলে প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

তিনি তার ‘quaium jomadar’ নামে ফেসবুক ওয়ালে গত সম্প্রতি শেখ হাসিনা সরকারের সফলতা দেখিয়ে যা লিখেছেন তা হুবুহুব তুলে ধরা হল- ”বিএনপি ও তার জোটে দায়িত্বশীল পদে থেকে নৌকা বিজয়ের পরামর্শ দেয়া, ভোট কেন্দ্রে গিয়ে নৌকায় ছীল মেরে প্রমানপ্ত্র জমা দেয়া,আবার নৌকা পতনের আপেক্ষা করার চেয়ে পদত্যাগ করে ১০০% নৌকার পক্ষে গেলে সমালোচনার কি আছে? পরিবর্তন তো নতুন নয়। সরকারের রয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন সফলতা, মাথাপিছুআয় বৃদ্ধি, বেতন বৃদ্ধি, সকল ধরনের ভাতা বৃদ্ধি, বিশেষ সময় প্রনোদনা, বিতরণে রয়েছে জবাবদিহিতা, আগত পদ্মাসেতুর সুবিধা,শতভাগ বিদ্যুৎ সুবিধা,শহরের মতো সকল সুবিধা গ্রামগুলোতে, প্রতন্ত গ্রামে রোড লাইট, উন্নত যোগাযোগ,শিক্ষা উপবৃত্তির পরিমান বৃদ্ধি,নিরাপত্তা ব্যবস্থা আগের চেয়ে উন্নত, গৃহহীন মানুষের ঘর, জঙ্গী দমন সহ আরো অনেক সাফল্য।
কৌশলগত কারনে লম্বা সময় পিছিয়ে পড়া দলের নেতাকর্মী কেউ তাদের ব্যাবসা বানিজ্য সম্পদ সামাজিক আবস্থান টিকিয়ে রাখতে সরকারি দলের সাথে পরোক্ষ যোগাযোগ রেখে সময় পার করেন। আবার কেউ বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করে, সরকারের সাফল্য বিবেচনা করে দলের পরিবর্তন করে। এটি কোন নতুন বিষয় নয়, এক জীবনে একবারই হতে পারে। আবার আমার মতামত ভুলও হতে পারে”।
এ ব্যাপারে এম এ কাইউম জোমাদ্দারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, দল বদল এটা নতুন কিছু নয়। দেশের প্রধান রাজনৈতিক দল গুলোর অনেক বড় বড় নেতাও সময়ের প্রয়োজনে দল বদল করেছেন। ইন্দুরকানী উপজেলা আ.লীগের বর্তমান সভাপতি তার আ.লীগে আসার ব্যাপারে অনুপ্রেরণা বলে তিনি জানান।
তিনি আরো বলেন, আমি দীর্ঘদিন বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম। এ দলটিতে রয়েছে নানান সমস্যা। অভ্যন্তরীণ কোন্দল আর পারস্পারিক রেষারেষি বেশি। আর এসব কারনেই আমি আমার বিএনপির সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি নিয়ে এখন আ.লীগের মতাদর্শে বিশ্বাসী হয়েছি। কারন শেখ হাসিনার সরকারের রয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন। তার সফল নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলছে সম্মৃদ্ধির পথে। তাই দেশের সাধারন মানুষ তার নেতৃত্বের প্রতি অনেক খুশি এবং আস্থাশীল।
উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ফাইজুল কবির তালুকদার জানান, আমার জানামতে কাইউম জোমাদ্দার বালিপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক পদে রয়েছেন। তবে বেশকিছু দিন ধরে তাকে দেখছি আ.লীগের নেতাকর্মিদের সাথে ওঠাবসা। হঠাৎ কি কারনে তিনি অন্য দলের গুনগান শুরু করেছেন তা আমার জানা নেই।
বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান হাওলাদার বলেন, দলে কোন নতুন কর্মির আগমন। এটা একটা সংগঠনের জন্য শুভ হতে পারে আবার কখনো তা অশুভও হতে পারে।
উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক শাহিন গাজী বলেন, ইন্দুরকানীতে আ.লীগের এ শাসনামলে আ.লীগ ও সহযোগী সংগঠন গুলোতে এক এক নেতার হাত ধরে দিনদিন অসংখ্য অনুপ্রবেশকারীরা ঢুকে পড়ছে। অনেকে অন্য দল থেকে এসে গুরত্বপূর্ণ পদ পদবী নিয়ে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ড চালাচ্ছেন । এতে করে দলের ভাবমূর্তি নস্ট হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে অদুর ভবিষ্যতে এ সংগঠনের জন্য অশুভ সংকেত বয়ে আনবে বলে তার ধারনা। দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার সুবাধে অনেকে নানা রকম সুবিধা নিতে বিভিন্ন কৌশলে ঢুকে পড়ছে ক্ষমতাসীন দলে।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
বাংলা English
Copy link
Powered by Social Snap