বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:২১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
করোনার টিকা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

করোনার টিকা নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

0 Shares

ইন্দুরকানী বার্তা ডেস্ক:
করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সোমবার (১ মার্চ) সকাল ৬টা ২৫ মিনিটে রাজধানী দিল্লির এআইআইএমএসে তিনি টিকা নেন বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

টিকা নেওয়ার পর এক টুইটবার্তায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এআইআইএমএসে করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছি। বৈশ্বিক করোনা মহামারি মোকাবিলায় আমাদের ডাক্তার ও বিজ্ঞানীরা স্বল্পতম সময়ে যে তৎপরতা দেখিয়েছেন, তা সত্যিই অসাধারণ।’

‘যারা এখনো করোনা টিকা নেননি, তাদের সবাইকে তা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি। আসুন, আমরা একটি করোনামুক্ত ভারত গড়ে তুলি।’

গত ১৬ জানুয়ারি থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে ভারত। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাদের টিকা দেওয়া হবে, সেই তালিকায় সবার আগে রয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মী ও সম্মুখসারির করোনাযোদ্ধারা। তালিকায় তাদের পর রয়েছেন পঞ্চাশোর্ধ্ব ব্যক্তিরা।

প্রথম পর্যায়ে ৩ কোটি স্বাস্থ্যকর্মী ও সম্মুখসারির করোনাযোদ্ধাদের টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে ভারত সরকারের। তার পরে প্রায় ২৭ কোটি পঞ্চাশোর্ধ্ব বয়সী ব্যক্তিদের টিকা দেওয়া হবে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলমান এই কর্মসূচিতে ইতোমধ্যে ১ কোটিরও বেশি ডোজ টিকা দেওয়া হয়ে গেছে।

এই কর্মসূচিতে ব্যবহারের জন্য গত ৩ জানুয়ারি ভারতের কেন্দ্রীয় ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই) দু’টি করোনা টিকার অনুমোদন দিয়েছে। সেগুলো হলো ভারত বায়োটেকের তৈরি ‘কোভ্যাক্সিন’ ও সেরাম ইনস্টিটিউটের ‘কোভিশিল্ড’।

ভারত বায়োটেক ভারতের হায়দরাবাদভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। তারা ‘কোভ্যাক্সিন’ নামের টিকাটি তৈরি করেছে।

অন্যদিকে ভারতের পুনেভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট বিশ্বের বৃহত্তম টিকা প্রস্তুতাকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃত। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনার টিকা প্রকল্পের অন্যতম অংশীদারও তারা। সেরাম ইন্সটিটিউট তৈরি করেছে ‘কোভিশিল্ড’।

‘কোভ্যাক্সিন’ ও ‘কোভিশিল্ড’— দু’টি টিকাই ভারতের দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়েছে। এছাড়া টিকাদান কর্মসূচিতে ব্যবহারের জন্য অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা টিকাও অনুমোদন দিয়েছে ডিসিজিআই।

ভারতের যখন গণটিকাদান কর্মসূচি শুরুর বিষয়ে আলোচনা চলছিল, তখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বরাবর কয়েকজন মুখ্যমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকার মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন সদস্য রাজনীতিবিদদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছিলেন।

কিন্তু নরেন্দ্র মোদি তাদের অনুরোধ নাকচ করে বলেছিলেন, টিকার অগ্রাধিকারের তালিকায় চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী ও সম্মুখসারির করোনাযোদ্ধাদের প্রথমে রাখা হয়েছে। তাদের ডিঙ্গিয়ে রাজনীতিবিদদের টিকা দেওয়া হলে বিষয়টি ‘দৃষ্টিকটু’ দেখাবে।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
Design By MrHostBD
বাংলা English
Copy link
Powered by Social Snap