সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেনের প্রতিবাদ

প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেনের প্রতিবাদ

0 Shares

গত ২৯ মার্চ সোমবার কিছু জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক, ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া এবং অনলাইন নিউজ পোর্টালে “ইন্দুকানীতে ব্যবসায়ীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় পিটিয়ে নির্যাতন” এবং 30 শে মার্চ ‘ইন্দুরকানীতে কাঠ ব্যবসায়ীকে নির্যাতনের ঘটনায়
ইউপি চেয়ারম্যানসহ 10 জনের বিরুদ্ধে মামলা’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করেছেন পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার 2নং পত্তাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাওলাদার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন।

এক প্রতিবাদ বক্তব্যে ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম বলেন, আমাকে জড়িয়ে যে সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট, রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক ,যা পুরোপুরি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ঘটনার দিন সন্ধার পরে আমি তখন ছিলাম বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ লতিফ হাওলাদার এর ইন্দুরকানী উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন অফিসে একটি বিবাহ বিচ্ছেদ বৈঠকে। এর পরে রাত ১০.৩০ এর দিকে পত্তাশী বাজারে গেলে তখন ভুক্তভোগী ওই মেয়ের চাচাতো ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা মোছলেম আলীর বাড়ি সংলগ্ন রাস্তায় আমি সহ আরও কয়েকজন লোকের সামনে জানায়-স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী আল-আমিন নামে এক যুবক কু-মতলব নিয়ে প্রত্যাশী গ্রামের মুসা শেখের বাড়িতে ঢুকে ঐদিন রাতে একটি বিবাহিতা মেয়েকে শ্রীলতাহানির চেষ্টা ও মারধর করেছে । এসময় ওই মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে এ ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন জড়ো হয় ওই বাড়িতে। লোকমুখে এ ঘটনা শোনার পর আমি পুলিশ ও এক সাংবাদিককে জানাই এবং তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় গ্রাম পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠাই।

তারপর আমি স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় ওয়াজ মাহফিলে যাই ও মাহফিল থেকে ফিরে এসে ১ নং ইউপি সদস্য মাসুম হাওলাদারকে নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি আল আমিনের ২ হাত বাঁধা এবং ভুক্তভোগী ওই মেয়েটি মাটিতে পড়ে আছে। স্থানীয় গ্রাম পুলিশকে হাতের বাঁধন খুলে দিতে বলি। সাথে সাথেই তার হাতের বাঁধ খুলে দেওয়া হয়। এসময় মেয়েটি ও আল আমিন দুজনকেই উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর চেষ্টা করি।” এ সময় পুলিশ মেয়েটির বক্তব্য শুনে আলামিনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে মেয়েটি শ্রীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ এনে আল আমিনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও বলেন- আমার সামনে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন তাই রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে এবং জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে এলাকার প্রভাবশালী কিছু লোকজন আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য এ মিথ্যা সংবাদ বিভিন্ন দৈনিক ও অনলাইন পত্রিকায় ছড়িয়েছে। আমি এই সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

মেয়েটির উপর হামলাকারী আল আমিন এর বাবা এলাকার কিছু প্রভাবশালী লোকের প্ররোচনায় গত 30 শে মার্চ আমাকে ও আমার ছেলেকে জড়িয়ে সম্পূর্ণ মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে নির্যাতন ও চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে 10 জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। তিনি তার প্রতিবাদলিপিতে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত এ ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান তিনি।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
Design By MrHostBD
Copy link
Powered by Social Snap