সোমবার, ১৭ Jun ২০২৪, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
ইন্দুরকানীতে সংস্কারের নামে ৫টি সমাধি ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ

ইন্দুরকানীতে সংস্কারের নামে ৫টি সমাধি ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ

0 Shares

ইন্দুরকানী বার্তা:
পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে হিন্দুদের শশ্মন সংস্কারের নামে ৫টি সমাধি ভাঙ্গার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ঊত্তম সাহা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুৎফুন্নেসা খানমের কাছে গতকাল বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারী) লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে উত্তম সাহা জানান, গত ১৮ জানুয়ারী উপজেলার পাড়েরহাট বন্দরের হিন্দুদের সদকারের জন্য শশ্মান ঘাটের বাউন্ডরি ওয়াল নির্মান ও শ্মশান সংস্কারের জন্য স্থানীয় মিঠুন কর্মকার, পলাশ কর্মকার গোপাল কর্মকার,নরত্তম কুন্ডু ও কৃষণ রায় কাজ শুরু করে। তখন শশ্মানের মধ্যে থাকা আমার পিতা বেনী মাধব সাহার সামাধি, মাতা পূষ্প রানীর সমাধি, চাচা ফণি লাল সাহা, রাধিকা জীবন সাহা ও বিপদ সাহা সমাধি ভেঙ্গে ফেলে। আমি তাদের কাছে জানতে চাইলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাকে গালিগালাজ করে এবং হুমকী দেয়। এদের সমাধির কোন চিহ্ন রাখেনি। এ বিষয়ে আমি ইউএনও’র কাছে অভিযোগ করেছি। আমি এ ধরনের অমানবিক কাজের সুষ্ঠু বিচার চাই।
তিনি আরো বলেন, সমাধি গুলোর বেশ কয়েক ফুট দুরে খালের পাড়ে বাউন্ডরি দেয়াল নির্মান করা হয়েছে। সমাধি গুলো না ভেঙ্গেও বাউন্ডরি করা যেত। তাতে কোন সমস্যা হতনা । আর এগুলো ভাংগার সময় আমাদের স্বজনদের কাউকে জানানো হয়নি। তারা ইচ্ছে করে এগুলো ভেঙ্গে ফেলেছে। আমার পিতা-মাতার স্মৃতি চিহৃটুকু এভাবে নস্ট করে ফেলায় আমি এখন মানসিক ভাবে ঠিক নেই।

পড়েরহাট বন্দর শশ্মান কমিটির সভাপতি রণজিৎ সাহা জানান, শ্শ্মানটি জড়াজীর্ণ হওয়ায় যাদের সংস্কারের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তারা বাউন্ডারি ওয়াল করতে গিয়ে উত্তম সাহার পিতা মাতার সমাধি সহ কয়েকটি সমাধি ভেঙ্গে পড়ে গেছে। এ বিষয় সমাজের লোক নিয়ে আমরা আলাপ আলোচনা করে কোন অপ্রীতিকর কিছু না ঘটে সে ব্যাপারে বসবো।

শ্শ্মান ঘাটের সংস্কার কাজের নেতা পলাশ কর্মকার সাংবাদিকদের জানান, দীর্ঘদিন ধরে শশ্মানের কেউ উন্নয়ন কাজ করেনি। পাড়েরহাট বন্দরের হিন্দু সম্প্রদয়ের লোকজন মিলে আমাদের দায়িত্ব দেয়ায় সংস্কার কাজ শুরু করি। তখন কাজের সময় সমাধি গুলো এমনিই পড়ে ভেঙ্গে যায়। আমরা কেউ ইচ্ছা করে সমাধি গুলো ভেঙ্গে ফেলেনি। আমাদের বিরুদ্ধে তিনি ভিত্তিহীণ অভিযোগ করেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুৎফুন্নেসা খানম জানান, পাড়েরহাট বন্দরের সমাধি ভাঙ্গার বিষয় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয দেখার জন্য ইন্দুরকানী থানার ওসিকে বলা হয়েছে।

ইন্দুরকানী থানার ওসি এনামুল হক জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি দেখার জন্য আমাকে বললে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। হিন্দুদের শশ্মান কমিটি শ্শ্মান সংস্কারের কাজ করছে। এ অভিযোগের বিষয়ে স্থানীয় শ্মশান কমিটিকে বসে বিষয়টিকে ভাল দেখতে বলা হয়েছে।





প্রয়োজনে : ০১৭১১-১৩৪৩৫৫
Design By MrHostBD
Copy link
Powered by Social Snap